মন্দির

রোজ একবার সমুদ্রে মিলিয়ে গিয়ে‚ আবার সমুদ্র থেকে জেগে ওঠে এই রহস্যময় মন্দির

রোজ একবার সমুদ্রে মিলিয়ে গিয়ে‚ আবার সমুদ্র থেকে জেগে ওঠে এই রহস্যময় মন্দির!

প্রতিদিন সে মিলিয়ে যায় সমুদ্রের কোলে, আবার জেগে ওঠে সমুদ্র থেকে। লোকমুখে তাই নাম হয়ে গেছে ‘ডিজঅ্যাপিয়ারিং টেম্পল‘ বা বিলীয়মান মন্দির। গুজরাতের বরোদা থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে কভি কম্বোই নামে একটি ছোট্ট শহরে আছে ভগবান শিবের এই মন্দির।

১৫০ বছরের পুরনো এই মন্দিরের প্রকৃত নাম স্তম্ভেশ্বর মন্দির। আরব সাগরের এক কোণে কাম্বে উপসাগরের মধ্যিখানে দাঁড়িয়ে রয়েছে এই মন্দির। প্রতিদিন জোয়ারের সময় সমুদ্রের নোনা জল গ্রাস করে নেয় মন্দিরটিকে, আবার ভাঁটার সময় সমুদ্রে বুক থেকে জেগে ওঠে ভগবান শিবের এই মন্দির। সে দেখার মতো এক দৃশ্য। তিল তিল করে জল এসে ঢেকে দেয় তাকে। আবার একটু একটু করে জল সরে গিয়ে দৃশ্যমান হয় মন্দির। তখন ভক্তরা প্রবেশ করে পুজো অর্চনা সবই করে | এমনকী ঘুরেও বেড়ানো যায় মন্দির লাগোয়া জমিতে। কিন্তু জোয়ার আসার আগে খালি করে দেওয়া হয় মন্দির প্রাঙ্গণ। প্রকৃতি নিজেই এখানে শিবলিঙ্গের জল-অভিষেকের আয়োজন করে।

আরো পড়ুনঃ রুদ্রপ্রয়াগের এই মন্দিরেই বিয়ে হয়েছিল শিব-পার্বতীর! আপনি জানেন তো?

প্রতি অমাবস্যায় এই মন্দিরে ধূমধাম করে শিব পুজো হয়। দুধের বদলে দেবতার অভিষেক হয় তেল দিয়ে। পুজোর পাশাপাশি ভক্তদের অন্যতম আকর্ষণ হল জোয়ার ভাটায় মন্দিরের লুকোচুরি খেলা দেখা। জোয়ার ভাটায় মন্দিরের অদৃশ্য এবং দৃশ্যমান হওয়া দেখতে হলে অবশ্য সারদিনই ঘাঁটি গেড়ে বসে থাকতে হবে এখানে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
error: Content is protected !!