Featuredদেশে দেশে হিন্দুধর্ম

ওমানে হিন্দু ধর্ম | Hinduism in Oman

রাজধানী মাস্কটে অবস্থিত শিব মন্দির এবং শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরকে তাদের অনন্য স্থাপত্যশৈলীতে মধ্যপ্রাচ্যের প্রাচীনতম মন্দির হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

ওমান আরব উপদ্বীপের দক্ষিণ-পূর্ব কোণে অবস্থিত একটি মুসলিম রাষ্ট্র। ওমানের পশ্চিমে ইয়েমেন, সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত, পূর্বে আরব সাগর, উত্তরে ওমান উপসাগর। ওমানের সবচেয়ে উত্তরের অংশ মুসান্দাম উপদ্বীপ হর্মুজ প্রণালীর দক্ষিণ তীর গঠন করেছে। পারস্য উপসাগরে ওমানের কয়েক কিলোমিটার তটরেখা আছে। ওমানের রাজধানী মাস্কাট।

ওমান হলো আরব বিশ্বের একমাত্র দেশ যেখানে বেশ কয়েক শতাব্দী ধরে হিন্দু ধর্মানুসারীরা বসবাস করে আসছে। বর্তমানে ওমানের জনসংখ্যার ৫.৫ শতাংশ মানুষ সনাতন হিন্দু ধর্মের অনুসারী। বিশ্বের অন্য অনেক দেশের মতো ওমানের হিন্দু জনসংখ্যার বেশীরভাগই ভারতীয় বংশোদ্ভূত। বর্তমানে ওমানে বসবাসরত হিন্দু ধর্মানুসারী অভিবাসীর সংখ্যা আড়াই লক্ষের বেশী। এদের মধ্যে প্রায় এক হাজার হিন্দুর ওমানি নাগরিকত্ব রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ কেদারনাথ মন্দিরের ইতিহাস ও ট্যুর গাইড

ওমানে হিন্দু ধর্মের প্রবেশ ঘটেছিল ১৫০৭ সালে। ভারতের কচ্ছ থেকে আসা ‘কাছি’ ভাষাভাষী হিন্দু ধর্মানুসারী মানুষ প্রথম ওমানের মাস্কটে প্রবেশ করেন। উনবিংশ শতাব্দীতে ওমানে প্রায় চার হাজারের মতো হিন্দু ধর্মানুসারী ছিলেন।

১৮৯৫ সালে মাস্কটের হিন্দু কলোনীতে ইবাদি মুসলিমরা হামলা চালায়। ওমানের অফিসিয়াল ধর্ম ইবাদি ইসলাম, যা সুন্নি ও শিয়া বিশ্বাস থেকে ভিন্ন ইসলাম ধর্মের একটি শাখা। এই হামলার ফলে বিংশ শতাব্দীর শুরুতে ওমানে হিন্দু সংখ্যা অনেকটাই কমে যায়। পরবর্তীতে অভিবাসী হিন্দুদের মাধ্যমে সেই সংখ্যাটি বৃদ্ধি পায়।

ওমানে সরকার অনুমোদিত দুটি হিন্দু মন্দির রয়েছে। মাস্কটে অবস্থিত শিব মন্দির ওমান তো বটেই, সমগ্র মধ্যপ্রাচ্যের মধ্যে প্রাচীন একটি হিন্দু মন্দির। এছাড়া রয়েছে একটি কৃষ্ণ মন্দির।

আরো পড়ুনঃ কম্বোডিয়ায় হিন্দু ধর্ম

শিব মন্দিরটি মতিশ্বর মহাদেব মন্দির নামেও সুপরিচিত। পুরনো মাস্কটের মুটরাহ অঞ্চলের আল আলম প্রাসাদের নিকটে এই মন্দিরটি অবস্থিত। মন্দিরটি মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম প্রাচীন একটি হিন্দু মন্দির। এই মন্দিরে সনাতন ধর্মের বিভিন্ন উৎসব যেমন, বসন্ত পঞ্চমী, রামনবমী, হনুমান জয়ন্তী, শ্রাবণ ও গণেশ চতুর্থী, হোলি, দীপাবলী প্রভৃতি পালিত হয়। মহাশিবরাত্রির সময় প্রায় ২০ হাজার হিন্দু পুণ্যার্থী মন্দিরটি দর্শন করেন। বিশ্বাস করা হয় যে ওমানের গুজরাটি ব্যবসায়ীদের দ্বারা ১২৫ বছর পূর্বে মন্দিরটি নির্মিত হয়েছিল।

১৫০৭ সালে কচ্ছের ভাটিয়া ব্যবসায়ী সম্প্রদায় মাস্কটে প্রথম বসবাস শুরু করেন। মন্দির চত্বরে মোট তিনটি মন্দির রয়েছে – শ্রী আদি মতিশ্বর মহাদেব মন্দির, শ্রী মতিশ্বর মহাদেব মন্দির এবং শ্রী হনুমানজী মন্দির। যদিও মাস্কট একটি মরুভূমি অঞ্চলে অবস্থিত, তবুও মন্দিরটির কুয়াতে সারাবছর জল থাকে। মন্দিরে তিনজন পুরোহিতসহ তিনজন সাপোর্ট স্টাফ ও চারজন প্রশাসক কর্মচারী রয়েছেন। এর পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবকদের একটি সম্পূর্ণ দল মন্দিরের সমস্ত কাজ পরিচালনা করে। ২০১৮ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি ওমান সফরে এসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মন্দিরটি দর্শন করে অভিষেকম পালন করেন ও মন্দিরের ব্যবস্থাপক কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন।

আরো পড়ুনঃ মুসলিম দেশ ইয়েমেনে হিন্দু ধর্ম

রাজধানী মাস্কটে অবস্থিত শিব মন্দির এবং শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরকে তাদের অনন্য স্থাপত্যশৈলীতে মধ্যপ্রাচ্যের প্রাচীনতম মন্দির হিসেবে বিবেচনা করা হয়। শিব মন্দিরের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হল সারা বছরই এর কূপে জলের উপস্থিতি। একইভাবে, শ্রী কৃষ্ণ কম্পাউন্ড, সুন্দর উপত্যকা এবং মরুভূমি এলাকা দ্বারা বেষ্টিত, শ্রী কৃষ্ণ মন্দির, শ্রী গণেশজি মন্দির এবং মাতাজি মন্দির সহ তিনটি মন্দির নিয়ে গঠিত। হোলি, দিওয়ালি, হনুমান জয়ন্তী এবং নবরাত্রি সহ বিভিন্ন ধর্মীয় উত্সব নিয়মিতভাবে সেখানে উদযাপিত হয়।

কনকসি খিমজি ওমানের একজন প্রভাবশালী হিন্দু। তিনি হিন্দু ধর্মানুসারী হওয়া সত্ত্বেও শেখ উপাধী দেয়া হয়েছে। তিনিই আরব বিশ্বের একমাত্র হিন্দু শেখ।

ওমান জাতীয় ক্রিকেট দলের একমাত্র হিন্দু ক্রিকেটার সুরজ কুমার। তিনি নেপালী বংশোদ্ভূত হিন্দু।

আরো পড়ুনঃ মুসলিম দেশ ইরানে হিন্দু ধর্ম

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
error: Content is protected !!